অনুবাদ:কল্যাণী রমা

সোমবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০১২

সেই সব ঘটনা

মূলঃ সিলভিয়া প্লাথ (২১শে মে, ১৯৬২)

(শাফিনূর-কে)

শেষে সবকিছুই কিভাবে যেন জমে শক্ত হ’য়ে যায়!-
চাঁদের আলো, ওই খাড়া পাহাড়
যার উপত্যকার ফাটলে পিঠে পিঠ ঠেকিয়ে

শুয়ে থাকি আমরা। একটা পেঁচা কাঁদে
ওর ওই ধোঁয়া ধোঁয়া নীল ঠান্ডাটুকু ফুঁড়ে।
অসহ্য কিছু শব্দ আমার হৃত্‌পিন্ডের ভিতর ঢুকে যায়, স্বরধ্বনি।

শাদা ক্রিবটায় বাচ্চাটা ঘুরপাক খেয়ে খেয়ে একসময় দীর্ঘশ্বাস ফেলে,
মুখটা একটু খোলে, কিছু যেন চায়।
ওর ছোট মুখটা লাল রঙের কাঠ আর ব্যাথায় খোদাই ক’রা।

তারপর তারা জ্বলে – পাষাণহৃদয় সব তারা, কিছুতেই মোছা যায় না যে সেইসব তারা।
অল্প একটু কেবল ছোঁয়া - তারা জ্বলে, ক্লান্ত তারা।
আমি তোমার চোখ দেখতে পাই না।

আপেলফুল বরফে ঢেকে দেয় রাত, আর আমি সেই অন্ধকারে
এক গোল বৃত্তের পথেই হেঁটে যাই,
খাঁজে আটকে থাকে পুরনো কিছু ভুল, গভীর ক্ষত, তিক্ত পাপ।

কিছুতেই প্রেম এখানে আসে না।
অন্য এক প্রান্তে
একটা অন্ধকার ফাটল শুধু নিজে নিজেই খুলে যায়

ছোট শাদা লার্ভা নড়েচড়ে ওঠে, হাত নাড়ে ভ্রুণ, একটা শিশুর আত্মা।  
আমার শরীরও আমাকে ছেড়ে চলে যায়,
ওরা কারা? ছিঁড়ে খুঁড়ে ফেলছে হাত-পা?

অন্ধকার গলে গলে পড়ে। আর আমরা একজন আর একজনকে ছুঁই
পঙ্গুর মত।





কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন