অনুবাদ:কল্যাণী রমা

মঙ্গলবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০১২

পঙ্গু আমি

মূলঃ সিলভিয়া প্লাথ (২৯শে জানুয়ারি, ১৯৬৩)


জানি এমনই ঘটে। তবু, এভাবেই কি দিন কাটবে, বল এভাবেই কি?-
মনটা পাথর হ’য়ে আছে,
আঁকড়ে ধরবার জন্য কোন আঙ্গুল নেই, কিংবা জিহবা,
আমার ঈশ্বর সেই লোহার ফুসফুস, আমাকে ভালোবেসে

এই দু’টো ধূলোভরা থলিতে বাতাস
ভরছে আর বের করছে
সে আমার আবার কোন পতন হ’তে
দেবে না তো

বাইরে যে দিন তা টেলিগ্রাফযন্ত্রের ফিতার মত ক’রেই
ধীরে ধীরে এগিয়ে চলেছে। আর রাতগুলো
ফুটিয়ে তুলছে ভায়োলেট ফুল,
চোখে ট্যাপিস্‌ট্রির নক্‌শা,

আলো,
নরম অচেনা কন্ঠস্বরঃ ‘সব ঠিক তো?’ মাড় দেওয়া
শক্ত কাপড়ের মত এ পাঁজর,
কোন মানুষের ঢোকা নিষেধ এখানে।

মৃত ডিম, পুরোটা শরীর জড়ো ক'রে শুয়ে থাকি আমি
আর আমার পাশে যে সম্পূর্ণ পৃথিবী,
তাকে কিছুতেই ছুঁতে পারি না, আমার

শাদা,শক্ত বিছানায়
কত ছবি ঘুরে ঘুরে আসে-
আমার বৌ, সেই কবে মরে ভূত হ’য়ে গেছে,
পরনের পোশাকে ১৯২০ সালের ফার, মুখভর্তি মুক্তা তার,

দুই মেয়ে
একই অবস্থা, ফিস্‌ফিস্‌ ক’রে বলে চলেছে,‘আমরা তোমার মেয়ে।’
শান্ত, স্থির জল
ঠোঁট জড়িয়ে ধরছে,

চোখ, নাক, কান
স্বচ্ছ সেলোফেন যেন
আমি একটু ফাঁক ক’রে দম নিতে পারছি না।
নগ্ন পিঠ

অল্প হাসি, গৌতম বুদ্ধের মত, সব কামনা, আর যা কিছু চাওয়া
আংটির মত খসে খসে পড়ছে শরীর থেকে,
জড়িয়ে ধরছে ওরা ওদের নিজের আলো,

ম্যাগনোলিয়ার থাবা আর নখের আঁচড়,
নিজ গন্ধে নিজেই মাতাল,
কিছুই চায় না সে তো আর
জীবনের কাছ থেকে।

1 টি মন্তব্য:

  1. একটা অপূর্ব অনুবাদ কবিতা পড়লাম
    অনুবাদকের প্রতি অশেষ শুভকামনা

    উত্তরমুছুন